রফিকুল আলম

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে ২৯টি গান গেয়েছেন রফিকুল আলম

টপ স্টোরি বিনোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক »

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের জীবন্ত কিংবদন্তী সঙ্গীতশিল্পী রফিকুল আলম জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী’তে ২৯টি গান গেয়েছেন।

তিনি জানান বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তার গাওয়া ২৯টি গান বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী অনুষ্ঠান’সহ বাংলাদেশ টেলিভিশনে, বাংলাদেশ বেতার’সহ বিভিন্ন প্লাটফরমে প্রচারিত হয়েছে। গানগুলো লিখেছেন ড. বায়েজীদ খুরশীদ, মোহাম্মদ রফিক উজ জামান, কবির বকুল, সাফাত খৈয়ম’সহ আরো বেশ কয়েকজন গীতিকার। গানগুলোর সুর করেছেন শেখ সাদী খান, মাকসুদ জামিল মিন্টু, প্রয়াত ফরিদ আহমেদ, আমিনুল ইসলাম, আনিসুর রহমান তনু’সহ আরো বেশ কয়েকজন।

গানগুলো প্রসঙ্গে রফিকুল আলম তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন,‘ যেহেতু আমি স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের একজন শিল্পী, তাই বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গানগুলোর প্রতি আমার পরম আবেগ ছিলো, ভালোবাসা ছিলো। দেশ মাতৃকার প্রতি আবেগ, বঙ্গবন্ধুর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ভালোবাসা নিয়ে আমি ভীষণ আবেগ দিয়ে গানগুলো গেয়েছি। যে কারণে প্রত্যেকটি গানই সৃষ্টি হয়েছে এক অনবদ্য রুপ নিয়ে। গানগুলো গেয়ে আমি নিজেও ভীষণ তৃপ্ত। যারা লিখেছেন এবং সুর করেছেন তাদের প্রতি আমার আন্তরিক ভালোবাসা। সত্যি বলতে কী করোনাতে কিছু ভালো কাজ করতে পেরেছি, এটাই আমার মনের তৃপ্তি।’

রফিকুল আলম জানান, রবি’র উদ্যোগে প্রয়াত বরেণ্য সুরস্রষ্টা সমর দাসের সুর করা এবং নয়ীম গহরের লেখা গান ‘নোঙ্গর তোল তোল সময় যে হলো হলো’ গানটি তিনি আবার গেয়েছেন পাভেলের সঙ্গীতায়োজনে। তার ভাষ্যমতে তিনি জীবনে এতো বৃহৎ পরিসরে কোন গান করেনি। এতে তারসঙ্গে আরো গেয়েছিলেন চিরকুটের সুমী এবং শাকিব। গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন আবরার। এই কাজটি করে ভীষণ তৃপ্ত রফিকুল আলম।

রফিকুল আলমের প্রথম জনপ্রিয় মৌলিক গান হচ্ছে ‘তোমাকে যেন ভুলে না যাই’। গানটি লিখেছিলেন এস এম হেদায়েত এবং সুর করেছিলেন প্রয়াত লাকি আখান্দ। সিমোতে তিনি প্রথম প্লে-ব্যাক করেন নায়ক রাজ রাজ্জাক অভিনীত ‘অতিথি’ সিনেমায় ‘একটু যদি আজ নেশাই হলো’ গানটি। এটি লিখেছিলেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার এবং সুর করেছিলেন সত্য সাহা।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও আজও পাননি তিনি। তা নিয়ে কোন দু:খ বোধ নেই তার। পেয়েছেন কোটি কোটি মানুষের ভালোবাসা। যেন এটাই তার বড় প্রাপ্তি। রফিকুল আলম ‘স্মৃতি তুমি বেদনা’ সিনেমায় আবুল হায়াত মো: কামালের লেখা এবং তার গানের গুরু অনুপ ভট্টাচার্য্য’র সুরে ‘বৈশাখী মেঘের কাছে’ গানের জন্য বাচসাস পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন।