করোনার ভ্যাকসিন

জি-৭ বিশ্বকে ১ বিলিয়ন টিকা ‘উপহার’ দেবে

করোনা ভাইরাস টপ স্টোরি সারাবিশ্ব স্লাইডার

সারাবিশ্ব ডেস্ক

করোনা ভাইরাস মহামারিতে বিধ্বস্ত সারা বিশ্ব। এ রোগ প্রতিরোধে ইতোমধ্যে বিভিন্ন দেশ উৎপাদন করেছে ভ্যাকসিন। কেউ বা অন্য দেশ থেকে নিজ নাগরিকদের জন্য টিকা আমদানি করছে। কিন্তু বিশ্বের অনেক দরিদ্র দেশ আছে যারা এখনও পর্যন্ত টিকা পায়নি। আবার অন্যদিকে উৎপাদনকারী দেশগুলো বাড়তি টিকার বড় একটি অংশ দরিদ্র দেশগুলোতে না পাঠালে লাখ লাখ ডোজ টিকা নষ্ট হয়ে যেতে পারে বলে সতর্ক করেছে ইউনিসেফ। এমন পরিস্থিতিতে আশার আলো দেখালো ব্রিটেন।

বৃহস্পতিবার ব্রিটেন জানিয়েছে, জি-৭ এ অংশগ্রহণকারী রাষ্ট্রনেতারা কোভিড ভ্যাকসিন উৎপাদন বৃদ্ধি এবং বিশ্বব্যাপী সরবরাহ করতে অবশ্যই সিদ্ধান্ত নেবে। করোনা মোকাবিলায় বিশ্বের দরিদ্র দেশগুলোকে সবরকম অর্থ সাহায্য এবং কমপক্ষে এক বিলিয়ন ডোজ টিকা সরবরাহ করা হবে।

ইংল্যান্ডের পর্যটন-শহর কর্নওয়ালে এই বছর জি-৭ সম্মেলন শুরু হচ্ছে। জি-৭ সম্মেলন শুরুর আগেই বিশ্ববাসীকে টিকা নিয়ে বার্তা দিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আগামী বছরের মধ্যে কমপক্ষে ১০০ মিলিয়ন উদ্বৃত্ত টিকা দান করা হবে, আসন্ন সপ্তাহের শুরুতে পাঁচ মিলিয়ন টিকা দান করা হবে। টিকার সমতা ফিরিয়ে আনতে এই সিদ্ধান্ত। যদিও টিকা দান করা নিয়ে আগেই মুখ পুড়েছে ব্রিটেনের। ৪০০ মিলিয়ন উদবৃত্ত ডোজ দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ব্যর্থ হয়েছিল তারা।

ডাউনিং স্ট্রিটের একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জি-৭ এ অংশগ্রহণকারী রাষ্ট্রনেতারা কোভিড ভ্যাকসিন উৎপাদন বৃদ্ধি এবং বিশ্বব্যাপী সরবরাহ করতে সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে। এই লক্ষ্য অর্জনের জন্য ভ্যাকসিন উত্পাদন বৃদ্ধির নতুন পরিকল্পনা নেয়া হতে পারে।

ইতোমধ্যেই, করোনা মহামারীতে বিশ্বব্যাপী সাহায্যেরে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি জানিয়েছেন, ফাইজারের কোভিড টিকার ৫০ কোটি ডোজ কিনে বিশ্বের ৯২টি আর্থিকভাবে দুর্বল দেশকে দান করবে আমেরিকা। বিশেষ করে, এশিয়া ও আফ্রিকার তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোতে আগামী বছর এই কোভ্যাক্স কর্মসূচিতে নামবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।